ভারতের ১০টি রাজ্যে ছড়িয়ে পড়েছে বার্ড ফ্লু

নিউজ ডেস্কঃ

পোলট্রির মুরগিতে এখনো পর্যন্ত বার্ড ফ্লু ধরা পড়েনি। বৃহস্পতিবার এ কথা জানিয়ে দিয়েছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। সপ্তাহের শুরুতে তিনি দিল্লিতে মুরগি বিক্রি নিষিদ্ধ করেছিলেন। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল দিল্লির অদূরে উত্তরপ্রদেশ সীমানায় গাজিপুরের মুরগি মার্কেট। দিল্লির সব চেয়ে বড় পোলট্রিজাত মুরগির বাজার গাজিপুর। গত কয়েকদিন ধরে গাজিপুর মার্কেটে রাখা মুরগির রক্তের নতুন সংগ্রহ করা হয়েছে। তারপর সেই নমুনা পাঠানো হয় বিশেষ পরীক্ষাগারে। সেখানেই দেখা যায় যে, একটি মুরগির শরীরেও বার্ড ফ্লুয়ের জীবাণু নেই। এরপরেই বৃহস্পতিবার কেজরিওয়াল জানান, গাজিপুর বাজার খুলে দেওয়া হচ্ছে। পোলট্রির মুরগিতে এখনো পর্যন্ত বার্ড ফ্লু পাওয়া যায়নি।

এখনো পর্যন্ত দিল্লিতে ৮৫০টি পাখির মৃতদেহ মিলেছে। যার মধ্যে অধিকাংশই কাক। এ ছাড়াও কিছু শীতের পরিযায়ী পাখি আছে। মৃতদেহ থেকে রক্ত সংগ্রহ করে ভোপালের পরীক্ষাগারে পাঠানো হয়েছিল। জানা গিয়েছে, এর মধ্যে প্রায় ৪৫০টি পাখির শরীরে এভিয়ান ইনফ্লুয়েঞ্জার নমুনা মিলেছে। এই ইনফ্লুয়েঞ্জা পোলট্রির পাখিদের বেশি হয়। এই ধরনের ইনফ্লুয়েঞ্জা হলে পোলট্রিতে মড়ক লাগে। তবে এখনো পর্যন্ত পোলট্রিতে তা পৌঁছায়নি বলে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন। বিক্রেতা এবং ক্রেতা দুই পক্ষকেই সতর্ক থাকার কথা বলেছেন তিনি।

বার্ড ফ্লু সম্পর্কে কিছু তথ্য

বার্ড ফ্লু কী?
বার্ড ফ্লু পাখিদের একধরনের জ্বর৷ কিন্তু এই জ্বরটির জন্য দায়ী এক ধরনের ভাইরাস, যার নাম এইচ৫এন১৷ এই ভাইরাসে আক্রান্ত হাঁস-মুরগি থেকে ভাইরাসটি মানুষের দেহে প্রবেশ করতে পারে৷ ছবিতে অণুবীক্ষণ যন্ত্রের নীচে এইচ৫এন১ ভাইরাসকে দেখা যাচ্ছে৷

গোটা দেশে অবশ্য লাফিয়ে বাড়ছে বার্ড ফ্লুয়ের সংখ্যা। গত শুক্রবার ছয়টি রাজ্যে বার্ড ফ্লুয়ের জীবাণু মিলেছিল। মরা পাখি পাওয়া গিয়েছিল বিভিন্ন এলাকা থেকে। এক সপ্তাহ পরে ১০টি রাজ্য বার্ড ফ্লুয়ে আক্রান্ত। সর্বশেষ আক্রান্ত হয়েছে উত্তরাখণ্ড। এর আগে কেরালা, রাজস্থান, মহারাষ্ট্র, মধ্যপ্রদেশ, হরিয়ানা, গুজরাট, দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ এবং হিমাচলপ্রদেশে বার্ড ফ্লুয়ের জীবাণু মিলেছিল। জয়পুরের চিড়িয়াখানা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। কারণ, সেখানে জলের ধারে বেশ কিছু পাখির মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছিল।

হিমাচলপ্রদেশ এবং কেরালায় এখনো পর্যন্ত হাজার হাজার পাখির মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে। উত্তরপ্রদেশ অবশ্য জানিয়েছে, সেখানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের মধ্যে আছে। দিল্লিতেও বেশ কিছু পার্ক বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বার্ড ফ্লু যাতে ছড়িয়ে পড়তে না পারে তা দেখার জন্য এই সপ্তাহেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা একটি বৈঠক করেছেন। কোভিড পরিস্থিতি মাথায় রেখে সকলকে পদক্ষেপ নেওয়ার কথা বলেছেন মোদী।

বিশেষজ্ঞদের একাংশের বক্তব্য, বার্ড ফ্লু ছড়িয়ে পড়লেও তা নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার সময় এখনো আসেনি। মানুষকে এখনো পর্যন্ত এই রোগ সমস্যায় ফেলেনি। তবে সচেতন থাকা জরুরি। পরিস্থিতি সামলাতে প্রায় প্রতিটি রাজ্যই অসুস্থ পাখি মারার কাজ শুরু করেছে।

  •  
  •  
  •  
  •