উইঘুরদের ওপর গণহত্যার অভিযোগ অস্বীকার করলো চীন

weghur

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ সংখ্যালঘু মুসলিম উইঘুর সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে চালানো গণহত্যার অভিযোগকে অস্বীকার করেছে চীন। রোববার (৭ মার্চ) দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি করেন।

সারা বিশ্বের কাছে উইঘুর ইস্যুতে বিতর্কের মুখে চীন। একের পর এক দেশ শিনজিয়াংয়ে প্রদেশে উইঘুর মুসলিমদের ওপর চীনা সরকারের আচরণকে গণহত্যা বলে আখ্যা দিয়েছেন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার পর চীন সরকারের আচরণকে ‘গণহত্যা’ বলে স্বীকৃতি দিয়েছে নেদারল্যান্ডও।

চীনের তথাকথিত ‘কারিগরি শিক্ষাকেন্দ্রে’ নিপীড়নের একাধিক প্রমাণ আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। এর মধ্যে গত সপ্তাহে প্রকাশিত বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, উইঘুর মুসলিমদের নির্যাতন করছে চীন সরকার। তাদেরকে দিয়ে জোর করে শ্রমিকের কাজ করানো হচ্ছে। উইঘুররা প্রক্রিয়াগত ধর্ষণের শিকার বলেও অভিযোগ তোলা হয় ওই প্রতিবেদনে।

জাতিসংঘ জানায়, কমপক্ষে দশ মিলিয়ন মুসলিম সংখ্যালঘু লোক সেই সব শিবিরে রয়েছে। যাকে চীন বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণ ও উগ্রপন্থা নির্মূল করার প্রক্রিয়া বলে অভিহিত করে আসছে।

এ বিষয়ে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, পশ্চিমা রাজনীতিবিদরা শিনচিয়াং সম্পর্কে মিথ্যাচার করছে। তিনি বলেন, মূলত চীনের বিরুদ্ধে গুজব ছড়ানো হচ্ছে। গণহত্যার অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও হাস্যকর।

চীন বলছে, বিশ্বের যেকোনো লোক সেখানে পরিদর্শন করতে পারেন। চীন তাদেরকে স্বাগত জানাবে। তারা দেখে যেতে পারেন।

তবে মানবাধিকার সংগঠনগুলো বলছে, চীন সরকার উইঘুরদের ধর্মীয়সহ অন্যান্য স্বাধীনতা কেড়ে নিচ্ছে। জিনজিয়ানের শিবিরে উইঘুর নর-নারীকে সব সময় কড়া নজরদারির মধ্যে রাখা হয়। শিবিরে তাঁদের ওপর নানা নির্যাতন-নিপীড়ন চালানো হচ্ছে। সেখানে তাঁদের প্রজনন ক্ষমতা কেড়ে নেওয়া হচ্ছে। জোর করে তাঁদের বিশেষ মতবাদ শেখানো হচ্ছে।

  •  
  •  
  •  
  •