সহায়তা নেওয়ার আহব্বান জানাল বাংলাদেশকে : নেদারল্যান্ডস

নিউজ ডেস্কঃ

নেদারল্যান্ডস সরকার  কোভিড-১৯ মহামারির কারণে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোকে সহায়তা করতে ১০০ মিলিয়ন ইউরোর তহবিল তৈরি করেছে। যে দেশগুলো এ তহবিলের অর্থ চান তাদের আবেদন করার আহ্বান জানানো হয়েছে।
নেদারল্যান্ডসের পররাষ্ট্র-বাণিজ্য ও উন্নয়ন সহযোগিতা মন্ত্রী সিগ্রিড কাগ বুধবার (২৯ এপ্রিল) পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনকে ফোনে এসব কথা বলেন।

ড. মোমেন বিভিন্ন ইউরোপীয় ক্রেতাদের আদেশ বাতিল করার বিষয়টি উত্থাপন করেন।
তিনি ফোনালাপে বলেন, ইতিমধ্যে আন্তর্জাতিক ক্রেতারা ৩.১৮ বিলিয়ন ডলার অর্ডার বাতিল বা স্থগিত করেছেন। তার ফলে ১১৫০টি কারখানা এবং ২.২৮ মিলিয়ন শ্রমিকের জীবন যাত্রায় প্রভাব পড়েছে।

নেদারল্যান্ডসের ক্রেতারা যেন আরএমজি কারখানার বাংলাদেশের অর্ডার বাতিল না করে তা নিশ্চিত করার জন্য তিনি ডাচ মন্ত্রীর কাছে অনুরোধ করেন।
নেদারল্যান্ডসের মন্ত্রী ড. মোমেনকে আশ্বাস দিয়ে বলেন ডাচ ক্রেতারা বাংলাদেশি আরএমজি কারখানাগুলো থেকে তাদের আদেশ বাতিল বা স্থগিত করবে না। তিনি আরও উল্লেখ করেন ডাচ সরকার আরএমজি’র চালান চালু রাখতে সব রকম সহায়তা করবে।

রোহিঙ্গা সংকট ইস্যুতে ড. মোমেন নেদারল্যান্ডসের মন্ত্রী কাগকে বলেন, দুটি নৌকায় করে আসা প্রায় ৫০০ রোহিঙ্গা বাংলাদেশের সমুদ্রসীমায় বা সীমান্তের কাছাকাছিও নেই। সমুদ্রের আইন অনুসারে, অন্যান্য দেশের রোহিঙ্গাদের বাঁচানোর দায়িত্ব রয়েছে।
ডাচ মন্ত্রী এ প্রসঙ্গে বলেন, বাংলাদেশ যদি বার বার নৌকা বোঝাই রোহিঙ্গাদের উদ্ধার করতে হয় তবে এটি মিয়ানমারের একটি আশ্রয়কেন্দ্র হিসাবে পরিণত হবে এবং আরও রোহিঙ্গাকে গভীর সমুদ্রের দিকে ঠেলে দিতে উৎসাহিত করতে পারে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন রোহিঙ্গাদের পক্ষে ও আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে বিচারকালে তাদের সমর্থন করার জন্য ডাচ সরকারকে ধন্যবাদ জানান।

মন্ত্রী কাগ ড. মোমেনকে আশ্বাস দেন যে তার দেশ রোহিঙ্গাদের ন্যায়বিচার ও জবাবদিহিতার জন্য এ যাত্রায় দৃঢ়ভাবে সমর্থন অব্যাহত রাখবে।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন বাংলাদেশ ডেল্টা পরিকল্পনা ২১০০ বাস্তবায়নে বাংলাদেশকে ডাচ সমর্থনের জন্য মন্ত্রী কাগকে ধন্যবাদ জানান। পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন বাংলাদেশের নদী ভাঙনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার ক্ষেত্রে সমর্থন সম্পর্কে কথা বলেন।
ড. মোমেন মধ্যপ্রাচ্যের কোভিড-১৯ সংকট বিষয়টিও উত্থাপন করেন। বলেন সেখানে ১১.২ মিলিয়ন বাংলাদেশি প্রবাসী কর্মী চাকরি হারিয়েছেন। তিনি বাংলাদেশের অর্থনীতিতে তাদের রেমিট্যান্স যে ভূমিকা পালন করে তাও উল্লেখ করেন।

ড. মোমেন মধ্যপ্রাচ্য সরকারগুলোকে এ সংকট বোঝাতে ডাচ সরকারকে সমর্থন করার জন্য অনুরোধ করেন। মন্ত্রী সিগ্রিড কাগ এ ইস্যুতে বলেন, তিনি ওই অঞ্চলে ডাচ রাষ্ট্রদূতদের সঙ্গে কথা বলবেন।
আধা ঘণ্টার কাছাকাছি চলমান ফোনালাপে উভয় মন্ত্রী সাধারণ ও বৈশ্বিক স্বার্থের বিষয়ে একসঙ্গে কাজ করতে সম্মত হন।

  •  
  •  
  •  
  •