২০ জন ক্রেতাকে পা্ওয়া গেল দোকানের বাথরুম তল্লাশি করে

নিউজ ডেস্কঃ

বরিশালের ঈদ বাজারে চলছে চোর-পুলিশ খেলা। স্বাস্থ্যবিধি না মানায় জেলা প্রশাসন মঙ্গলবার (১৯ মে) থেকে মুদি এবং ওষুধ ছাড়া ঈদ কেন্দ্রিক সব শপিংমল ও দোকান বন্ধের নির্দেশ দিলেও তা উপেক্ষা করে ভিন্ন কৌশলে চলছে কেনাবেচা। এসব কারণে বরিশাল নগরী এবং জেলায় পরিচালিত ৬টি ভ্রাম্যমাণ আদালত ৩৩টি মামলার বিপরীতে ৫৭ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেছেন।

সরকারি নির্দেশনা না মানায় সোমবার রাতে এক গণবিজ্ঞপ্তি জারি করে মঙ্গলবার থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত মুদি ও ফার্মেসি ছাড়া বরিশালে ঈদ কেন্দ্রিক সব দোকান-মার্কেট বন্ধের নির্দেশ দেন জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান।

এই নির্দেশের পর নগরীর প্রধান বাণিজ্যকেন্দ্র চকবাজার, কাটপট্টি ও পদ্মাবতিসহ আশপাশের এলাকার বেশিরভাগ দোকানপাট বন্ধ করা হলেও কিছু দোকান কৌশলে খুলছে। দোকানের সামনে কর্মচারী রেখে সাটার খুলে ক্রেতাকে ভেতরে ঢুকিয়ে চলে অনেক দোকানের বেচাকেনা।

সকাল সাড়ে ১১টার দিকে নগরীর চক বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত দেখে সাটার আটকে দেওয়ার পর ওই সাটার খুলে নিউ বিশ্বশ্রী নামে একটি কাপড় ও তৈরি পোশাক দোকানের বাথরুমে শিশু-নারী ও পুরুষসহ অন্তত ২০ জনকে দেখতে পান নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রুমানা আফরোজ। এসময় ওই দোকান থেকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা এবং ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়কে সতর্ক করে দেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক।

  •  
  •  
  •  
  •