মানবদেহে করোনা ভাইরাসের পরীক্ষা কমলেও বেড়েছে পজিটিভ শনাক্তের হার

নিউজ ডেস্কঃ

দেশে ধীরে ধীরে কমে আসছে করোনার নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা। যদিও যে সংখ্যক নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে, তাতে কভিড-১৯ পজিটিভ শনাক্তের হার বৃদ্ধির দিকে। সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় দেশে পজিটিভ শনাক্তের হার ২৪ দশমিক ১১ শতাংশ, যা সংক্রমণকালে সবচেয়ে বেশি।

গতকাল স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কভিড-১৯ সম্পর্কিত নিয়মিত স্বাস্থ্য বুলেটিনে জানানো হয়েছে, সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১১ হাজার ৫৯টি। এর মধ্যে ২ হাজার ৬৬৬ জনের করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের চলতি মাসের তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, ৮ মার্চ দেশে করোনা রোগী শনাক্তের পর থেকে গতকালই শনাক্তের হার ছিল সবচেয়ে বেশি। নভেল করোনাভাইরাস পরীক্ষার জন্য নিবেদিত ৭৭টি ল্যাবের হিসাবে এদিন শনাক্তের হার ছিল ২৪ দশমিক ১১ শতাংশ। এদিকে দেশে সর্বমোট পরীক্ষার বিপরীতে গড় শনাক্তের হার ১৯ দশমিক ৫৪ শতাংশ। জুলাইয়ের প্রথম দিকেও যখন প্রতিদিন ১৭-১৮ হাজারের কোটায় পরীক্ষা করা হতো, সে সময়ও শনাক্তের হার ছিল সর্বোচ্চ ২১ শতাংশ। কিন্তু এখন যখন পরীক্ষার সংখ্যা কমেছে, স্বাভাবিকভাবে একই অনুপাতে কমেছে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা। তবে সংখ্যা কমলেও করোনা রোগী শনাক্তের হার প্রতিনিয়ত বেড়ে চলায় বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বিশেষজ্ঞরা।

বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন  বলেন, আমার মনে হয় পরীক্ষা কমার ফলেই শনাক্তের সংখ্যা নেমে এসেছে। এতে সংক্রমণের পুরো চিত্র উঠে আসছে না। মাঝের সময়টাতে যেভাবে পরীক্ষা করা হচ্ছিল, সেই ধারাটা বজায় থাকলে সংক্রমণের সঠিক চিত্র পাওয়া যেত বলে মতামত দেন এ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক। তবে আগস্টে বাংলাদেশে করোনা সংক্রমণ অনেকটা নেমে আসবে বলে মনে করেন তিনি।

এদিকে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে সুস্থ হয়েছেন ৫ হাজার ৫৮০ জন। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ৯৩ হাজার ৬১৪ জন। তবে মৃতের সংখ্যা বেড়েছে। এদিন আরো ৪৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। দেশে সর্বমোট মৃতের সংখ্যা এখন ২ হাজার ৩৫২। এ পর্যন্ত দেশে মোট করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১ লাখ ৮৩ হাজার ৭৯৫ জন।

  •  
  •  
  •  
  •