অবৈধ পলিথিন কারখানার সন্ধান মিলেছে সৈয়দপুরে

নিউজ ডেস্কঃ

নীলফামারীর সৈয়দপুরে একটি অবৈধ পলিথিন কারখানার সন্ধান মিলেছে। শহরের চাঁদনগর এলাকায় এক অভিযান চালিয়ে ওই কারখানা পায় র‌্যাব-১৩ সিপিসি-২ ক্যাম্পের সদস্যরা। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. রমিজ আলম অবৈধ পলিথিন উৎপাদন ও বাজারজাত করার দায়ে কারখানা মালিকের ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শহরের চাঁদনগর এলাকায় বিশাল জায়গাজুড়ে থাকা নিজের বাড়ির প্রধান ফটকে একটি কোচিং সেন্টারের সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে ভেতরে একটি অবৈধ নিষিদ্ধ পলিথিন কারখানা গড়ে তোলা হয়। আর দীর্ঘদিন ধরে ওই কারখানায় অবৈধ নিষিদ্ধ নানা রকম পলিথিন তৈরি করে সৈয়দপুরসহ আশপাশের জেলা ও উপজেলায় বাজারজাত করা হচ্ছিল।

গোপন সূত্রে খবর পেয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. রমিজ আলমের উপস্থিতিতে র‌্যাব-১৩ সিপিসি ক্যাম্প-২ এর কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ইমরান খানের নেতৃত্বে অভিযান চালানো হয় ওই অবৈধ পলিথিন কারখানায়। অভিযানকালে অবৈধ নিষিদ্ধ পলিথিন কারখানায় পলিথিন উৎপাদনের মেশিনপত্র, পলিথিন তৈরির বিভিন্ন রকম উপকরণ এবং পলিথিনের রোল পাওয়া যায়। পরে বিভিন্ন প্রকার পলিথিন, এলডিপি দানা, পলিথিনের রোল, পলিথিন তৈরির বিভিন্ন উপকরণসহ প্রায় ৪ টন মালামাল জব্দ করা হয়েছে। এ সময় সেখানে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে অবৈধ পলিথিন উৎপাদন ও বাজারজাত করার দায়ে কারখানার মালিকের মো. তারিক ইকবালকে (৩০) ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন।

ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. রমিজ আলম। এ সময় রংপুর পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিদর্শক কাজী সাইফুদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত তারিক ইকবাল শহরের উল্লিখিত এলাকার বাসিন্দা ও শহীদ ডা. জিকরুল হক সড়কের পলিথিন ব্যবসায়ী মো. আসলামে ছেলে বলে জানা গেছে।

  •  
  •  
  •  
  •