মোদিবিরোধী আন্দোলন কঠোরভাবে দমন করবে পুলিশ

modii

নিউজ ডেস্কঃ ভারতের প্রধানমন্ত্রীর বাংলাদেশ সফরকে কেন্দ্র করে নরেন্দ্র মোদিবিরোধী আন্দোলনের নামে কেউ রাষ্ট্রের সুনাম নষ্ট করলে আইন অনুযায়ী কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ভারপ্রাপ্ত কমিশনার এবং সদ্য পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চের (এসবি) অতিরিক্ত পুলিশ মহাপরিদর্শকের (চলতি দায়িত্ব) দায়িত্ব পাওয়া মনিরুল ইসলাম।

রোববার (১৪ মার্চ) মুজিববর্ষ ও সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে নিরাপত্তাব্যবস্থা নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে এমন হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন মনিরুল ইসলাম।

সংবাদ সম্মেলনে মোদিবিরোধী আন্দোলনের বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, দেশে ৫টি দেশের রাষ্ট্রপ্রধান আসবে। এ সময় কাউকে আন্দোলন না করার অনুরোধ করছি। তবে, কেউ রাষ্ট্রের সুনাম নষ্ট করলে আইন অনুযায়ী কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, রাজধানীতে বেশকিছু উন্নয়ন প্রকল্প চলমান আছে। ফলে চলাচলের রাস্তা কিছুটা সংকুচিত হয়ে গেছে। আগামী ১৭ মার্চ থেকে ২৬ মার্চ পর্যন্ত জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে ‘মুজিব চিরন্তন’ প্রতিপাদ্যে এ অনুষ্ঠান হবে। এ সময় ভিআইপিদের চলাচলের জন্য জনসাধারণের চলাচলে কিছুটা ভোগান্তি হতে পারে। ট্রাফিক ব্যবস্থা কিছুটা বিঘ্নিত হতে পারে। এ জন্য নগরবাসীকে গন্তব্যে পৌঁছাতে হাতে নির্ধারিত সময়ের চেয়ে বেশি সময় নিয়ে বের হতে অনুরোধ করেন মনিরুল ইসলাম।

তিনি বলেন, আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করব যাতে কোনো দুর্ভোগ না হয়, তবুও ক্ষেত্র বিশেষে হতে পারে। এ জন্য রাষ্ট্রীয় সম্মানের কথা চিন্তা করে নগরবাসীকে এসব ভোগান্তি মেনে নেওয়ার আহ্বান জানান মনিরুল ইসলাম।

উল্লেখ্য জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং দেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর উদযাপন উপলক্ষে আগামী ১৭ থেকে ২৬ মার্চ পর্যন্ত বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানদের নিয়ে একটি বড় উৎসব পালনের পরিকল্পনা করেছে সরকার।

ইতিমধ্যে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান, মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম মোহামেদ সোলিহ, নেপালের প্রেসিডেন্ট বিদ্যা দেবী ভান্ডারি এবং ভুটানের প্রধানমন্ত্রী লোটে শেরিং বাংলাদেশ সফর প্রায় নিশ্চিত করেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •