খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের অবস্থা নিয়ে উদ্বেগ, দোয়া চাইলেন মির্জা ফখরুল

zia

নিউজ ডেস্কঃ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। শ্বাসকষ্ট বেড়ে গেলে সোমবার তাকে সিসিইউতে নেওয়া হয়। এরপর তার স্বাস্থ্য নিয়ে উদ্বেগ সৃষ্টি হয়।

তবে তার শারীরিক অবস্থা নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই জানিয়ে দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

মির্জা ফখরুল বলেন, সোমবার (৩ মে) রাতে বেগম জিয়ার শ্বাসকষ্টের সমস্যা হওয়ায় ওনাকে সিসিইউতে নেওয়া হয়েছে। উনি এখনো সিসিইউতেই আছেন। এখন অক্সিজেন দেওয়া হচ্ছে। বেগম জিয়া এখন স্থিতিশীল আছেন।

মঙ্গলবার (৪ মে) দুপুরে জাতীয়তাবাদী শ্রমিকদলের ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও মহান মে দিবস উপলক্ষে ভার্চ্যুয়াল আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপির মহাসচিব এসব কথা বলেন।

খালেদা জিয়ার রোগমুক্তির জন্য দোয়া করে মির্জা ফখরুল বলেন, তিনিই আমাদের প্রতীক। দেশনেত্রী খালেদা জিয়া এই দেশের মানুষের হৃদয়ের মধ্যে শুধু নয়, তিনি এই দেশের মানুষের একমাত্র পরিচালক। আল্লাহ তায়ালার কাছে দোয়া করি তিনি যেন রোগমুক্ত হন।

‘একই সঙ্গে যিনি হাল ধরেছেন আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান যেন দেশে ফিরে আসতে পারেন। আমাদের ৩৫ লাখ মানুষের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা হয়েছে সেই মামলাগুলো যেন আমরা তুলে নিতে পারি। আমাদের কয়েক হাজার নেতাকর্মী কারাগারে রয়েছেন তাদের যেন মুক্ত করতে পারি এবং শ্রমিক শ্রেণির যে অধিকার সেটা আমরা যেন প্রতিষ্ঠা করতে পারি।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমরা দেখি করোনার প্রণোদনার মধ্যে শ্রমিক ভাইদের জন্য কোনো বরাদ্দ রাখা হয়নি। যা কিছু প্রণোদনা দেওয়া হয়েছে মালিক শ্রেণিকে দেওয়া হয়েছে। সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং আওয়ামী লীগের যারা দোসর, তারাই সব নিয়ে চলে যাচ্ছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, তারা একদলীয় রাবারস্ট্যাম্প পার্লামেন্ট গঠন করেছে। আইন-বিচার ব্যবস্থা, প্রশাসন সম্পূর্ণভাবে দলীয়করণ করেছে। সবচেয়ে মারাত্মকভাবে যেটা করেছে সেটা হলো নির্বাচনের মধ্য দিয়ে যে একটা পরিবর্তনের ব্যবস্থা ছিল সেই নির্বাচন ব্যবস্থাকে সম্পূর্ণ ধ্বংস করেছে। এই পরিস্থিতির মধ্যে ঐতিহাসিকভাবে যে দায়িত্ব বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনগুলোর ওপর এসে পড়েছে, সেটা হলো এই দেশে গণতন্ত্র আমাদের ফিরিয়ে আনতে হবে।

উল্লেখ্য চলতি বছরের ১০ এপ্রিল খালেদা জিয়ার করোনা শনাক্ত হয়। এরপর থেকে গুলশানের বাসা ফিরোজায় চিকিৎসক টিম গঠন করে অধ্যাপক ডা. এফএম সিদ্দিকীর নেতৃত্বে চিকিৎসা শুরু হয়। করোনা আক্রান্তের ১৪ দিন পার হওয়ার পর আবারও খালেদা জিয়ার নমুনা পরীক্ষা করা হয়; কিন্তু ফল করোনা পজিটিভ আসে। পরে তাকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

  •  
  •  
  •  
  •