দেড় বছরে ১৬ টি খুন করেছে “গামছা পার্টি”!

gamsa

নিউজ ডেস্কঃ ঢাকার গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে সংঘবদ্ধ ছিনতাই চক্র হরেক রকম কূটকৌশল অবলম্বন করে যাত্রী-পথচারীদের সর্বস্ব কেড়ে নেয়ার যে অভয়ারণ্য তৈরি করে, তা প্রায় এক নিয়মিত অঘটন। করোনা দুর্যোগেও এমন অপরাধমূলক সহিংসতা কমেনি। বরং মাত্রাতিরিক্ত মাথা চাড়া দিয়ে উঠেছে।

খিলক্ষেতের উড়াল সেতু, বিমানবন্দর ছাড়াও ৩০০ ফিটের নির্জন স্থান এবং আবদুল্লাপুর বাস ডিপোর অন্ধকার জায়গাই এই ছিনতাইকারী চক্রের নিরাপদ স্থান হিসেবে বিবেচিত। এই সংঘবদ্ধ অপরাধীরা ‘গামছা পার্টি’র পরিচয়ে তাদের সহিংস অভিযান চালায় মূলত রাতের অন্ধকারে নীরব, নিস্তব্ধ জায়গায়।

জানা গেছে, গভীররাতে কাজ শেষে বাড়ি ফিরতে গিয়ে পরিবহন না পেয়ে যারা বিড়ম্বনার শিকার হন তাদের সহায়তায় এগিয়ে আসেন একশ্রেণির সিএনজিচালিত অটোরিকশাচালক। যাত্রী হিসেবে তুলে ছিনিয়ে নেওয়া হয় সর্বস্ব। বাধা দিলেই গলায় গামছা পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা।

২০১৯ সালের ১০ ডিসেম্বর থেকে চলতি বছরের ৬ মে এই দেড় বছরে গামছা পার্টির হাতে প্রাণ গেছে ১৬ জনের। পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন এ পার্টির ৬ জন। তারপরেও রাশ টেনে ধরা যাচ্ছে না রাতের ঢাকার ভয়ংকর এ গামছা পার্টির।

গামছা পেঁচানো অবস্থায় এখন পর্যন্ত যতগুলো লাশ পাওয়া গেছে তার সবই রাজধানীর ফ্লাইওভারে। কারণ ফ্লাইওভারগুলোতে নেই কোনো সড়ক বাতি, নেই সিসি ক্যামেরা। পুলিশ বলছে খুব দ্রুতই পুরো রাজধানী সিসি ক্যামেরার আওতায় নিয়ে আসা হবে।

এ বিষয়ে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (উত্তর) যুগ্ম কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বলেন, জুনের মধ্যে পুরো ঢাকা শহরের প্রতিটি জায়গায় সিসি ক্যামেরা লাগানো ব্যবস্থা করা হবে। কোনো ঘটনা ঘটরার ক্ষেত্রে দ্রুত পদক্ষেপ নিতে পারব।

  •  
  •  
  •  
  •  
ad0.3

Tags: