বরগুনায় মাদ্রাসার শিক্ষার্থীকে মারধোর

নিউজ ডেস্কঃ বরগুনার আমতলি উপজেলার হলদিয়া ইউনিয়নের একটি মাদ্রাসায় রবিউল (১২) নামের এক শিশু শিক্ষার্থীকে বেত্রাঘাতে জখম করলেন মাদ্রাসার শিক্ষক। তার সাথে যোগ দেয় মাদ্রাসার সভাপতিও।

তুচ্ছ ঘটনার সূত্র ধরে ঐ শিক্ষার্থীকে বেত্রাঘাতে গুরুত্বর জখম করেন বলে থানায় অভিযোগ করেছেন শিশুটির বাবা।

এই ঘটনায় নির্যাতনের শিকার শিক্ষার্থী রবিউলের বাবা দুলাল ফকির মাদ্রাসা কমিটির সভাপতি আবুল চৌকিদার ও সহকারী শিক্ষক মাহাবুব আলমের বিরুদ্ধে আমতলি থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। 

রবিউলের বাবা দুলাল ফকির সাংবাদিকদের জানান, বুধবার রাত ১১টার দিকে জানতে পারেন, উত্তর তক্তাবুনিয়া ইউসুফিয়া রশিদিয়া হাফিজিয়া নূরানি মাদ্রাসায় অধ্যায়নরত তার ছেলে রবিউলকে নির্যাতন করে গুরুত্বর জখম করা হয়েছে।

রাতেই তিনি মাদ্রাসায় গিয়ে জানতে পারেন নাঈম নামের এক সহপাঠীর সঙ্গে জুতা পাল্টে গিয়ে সামান্য বিরোধ হয়। নাঈম শিক্ষক মাহাবুবকে জানালে মাহবুব মাদ্রাসার সভাপতিকে ডেকে আনেন। দুজনে বিচার বসিয়ে রবিউলকে বাঁশের চিকন কঞ্চি দিয়ে প্রহার করলে, রবিউল অসুস্থ হয়ে পড়ে। রাতেই রবিউলকে উদ্ধার করে আমতলি স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে আসা হয়।

রবিউলের, পিঠ, ঘাড় ও উরুতে আঘাতে কালো চিহ্ন পড়ে গেছে বলে জানান তার বাবা। প্রাথমিক চিকিৎসার পর রবিউলকে বাড়ি নিয়ে যাওয়া হয়েছে। 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মাদ্রাসা কমিটির সভাপতি সাংবাদিকদের বলেন, কয়েকটি চড়-থাপ্পড় দিয়েছি।

আমতলি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহ আলম বলেন, আমরা রবিউলের বাবার লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
ad0.3

Tags: , ,