‘মিল্কম্যান’ উপন্যাসের জন্য ম্যান বুকার জিতলেন আনা বার্নস

সাহিত্য ডেস্ক:
‘মিল্কম্যান’ উপন্যাসের জন্য এ বছরের ম্যান বুকার পুরস্কার জিতেছেন আইরিশ লেখিকা আনা বার্নস। তিনিই প্রথম কোনো উত্তর আয়ারল্যান্ডের লেখক, যিনি ৫০ হাজার পাউন্ড অর্থমূল্যের এ পুরস্কারটি জিতলেন। এ ছাড়া ২০১৩ সালের পর প্রথম নারী লেখক হিসেবেও এ পুরস্কারটি জিতলেন তিনি।

একজন ক্ষমতাধর ব্যক্তির হাতে একজন তরুণীর যৌন হয়রানির কাহিনি নিয়ে উপন্যাসটির ঘটনাপ্রবাহ এগিয়েছে। ইংরেজি সাহিত্যে ম্যান বুকারকে সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ পুরস্কার হিসেবে মনে করা হয়। ১৬ অক্টোবর, মঙ্গলবার ডাচেস অব কর্নওয়েল ক্যামিলা রোজমেরি আনা বার্নসের হাতে পুরস্কার তুলে দেন।

লেখিকা আনা বার্নসের এটি তৃতীয় উপন্যাস। উপন্যাসে ১৮ বছরের এক নাম না-জানা তরুণী তার ওপর হওয়া ভয়াবহ যৌন নির্যাতনের বর্ণনা দিয়েছেন। আর তাকে ওই যৌন হয়রানি করতেন একজন প্যারামিলিটারি ব্যক্তিত্ব, যিনি ‘মিল্কম্যান’ নামে পরিচিত।

ম্যান বুকারের চেয়ারম্যান বিখ্যাত দার্শনিক কিউয়ামে অ্যান্থনি আপিয়াহ আনা বার্নসের বইটিকে ‘অবিশ্বাস্য বাস্তব’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন।

আপিয়াহ বলেন, ‘আমাদের কেউই আগে কখনো এমন কিছু পড়িনি। আনা বার্নসের এমন স্বতন্ত্র লেখনী গতানুগতিক চিন্তাধারাকে চ্যালেঞ্জ করবে। নৃশংসতা ও যৌন সহিংসতাকে কৌতুকের সুরে তীব্র সমালোচনা করা হয়েছে এখানে।’

বইটি নিয়ে নিজের গঠনমূলক লেখায় এর চরিত্রগুলোর ব্যাপকতা নিয়েও আলোচনা করেছেন তিনি।

পুরস্কার ঘোষণার পর আনন্দে ভাষা হারিয়ে ফেলেন ৫৬ বছর বয়সী লেখিকা আনা বার্নস। নিজেকে সামলে তিনি বলেন, ‘ঔপন্যাসিক হিসেবে আমার কাজ হচ্ছে বর্তমানকে তুলে ধরা। এটা একটা অপেক্ষার ব্যাপার। আমার চরিত্রগুলো নিজেরাই তাদের গল্পটা আমাকে বলবে, এর জন্য আমাকে অপেক্ষা করতে হয়েছে।’

২০০২ সালে ‘নো বোনস’ বইয়ের জন্য ‘অরেঞ্জ প্রাইজ’ পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পেয়েছিলেন আনা বার্নস। তারপর দীর্ঘ সময় পর একটি পুরস্কার জিতলেন। এই লম্বা সময় নিজেকে কীভাবে সামলেছেন—সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমি বিভিন্ন বাণিজ্যিক ইভেন্ট পরিচালনা করেছি। আগের পুরস্কারের অর্থ দিয়ে আমি ঋণ পরিশোধ করেছি।’

 

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান

  •  
  •  
  •  
  •