মুশফিকের এক অসাধারণ সেঞ্চুরি

ক্রিড়া প্রতিবেদক:
বাংলাধেশ দলে মিস্টার ডিপেন্ডেবল কে? এক কথায় যে কেউ উত্তর দিয়ে দেবেন মুশফিকুর রহিমের নাম বলে। যদিও বিশ্বকাপে টানা দুই সেঞ্চুরি করার কারণে কেউ কেউ মাহমুদুল্লাহকে মিস্টার ডিপেন্ডেবল বলে সম্বোধন করে থাকেন; কিন্তু সত্যিকারের মিস্টার ডিপেন্ডেবল যে মুশফিকই, তাতে কোন সন্দেহই নেই। সেঞ্চুরি করে সেটা আবরও প্রমাণ করলেন বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে যখন ব্যাটসম্যানরা একের পর এক উইকেট বিলিয়ে দিয়ে আসছিল, তখন একমাত্র ব্যতিক্রম মুশফিকুই। নিজের একপাশ আগলে রেখে দলের রানকে বাড়িয়ে নেওয়ার অসাধারণ কাজটি করে যাচ্ছেন তিনি। শুধু একপ্রান্ত আগলে রাখাই নয়, দলীয় রানের চাকাও যাতে সমানতালে সচল থাকে সেটাও দৃঢ়তার সঙ্গে করে যাচ্ছেন মুশফিক।

লিটন, মাহমুদুল্লাহ কিংবা সাকিবরা যখন উইকেট বিলিয়ে দিয়ে আসছিলেন, তখন মুশফিকুর রহিম অসাধারণ এক সেঞ্চুরি করে বাংলাদেশকে লড়াকু ইনিংস সংগ্রহ করে দিলেন। ক্যারিয়ারের ২৩তম হাফ সেঞ্চুরি পূরণ করেছেন ৫২ বল খেলে। এরপর সেঞ্চুরি পূরণ করেছেন ১০৪ বলে।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজে শেষ দুই ম্যাচে অবশ্য মাঠেই নামা লাগেনি মুশফিকের। তার আগে অবশ্য ৫ ইনিংসে কোন হাফ সেঞ্চুরির দেখা পাননি। একটা ছিল অপরাজিত ৪৯ রানের ইনিংস। সর্বশেষ হাফ সেঞ্চুরি, ৭ ইনিংস আগে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৬৫ রানের। তার আগের ম্যাচেই অসাধারণ সেঞ্চুরি পেয়েছিলেন মুশফিক। অবশেষে এই ইনিংসটাকে পরিণত করলেন ক্যারিয়ারের চতুর্থ সেঞ্চুরিতে।

অথ্যাৎ সাত ম্যাচ বিরতি দিয়ে সেঞ্চুরির দেখা পেয়ে গেলেন বাংলাদেশ দলের ব্যাটিংয়ে সবচেয়ে নির্ভরতার প্রতীক মুশফিকুর রহিম। সেঞ্চুরি পূরণ করতে ছক্কা মেরেছেন একটি, আর বাউন্ডারি মেরেছেন ৮টি।

  •  
  •  
  •  
  •  
ad0.3

Tags: