প্রতিবেশীর আক্রমণে আহত বাকৃবি শিক্ষার্থী

পারিবারিক বিরোধকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) অধ্যায়নরত শিক্ষার্থী মো. ফারুক হোসেন ও তার পরিবারের উপর হামলার খবর পাওয়া গিয়েছে। আজ মঙ্গলবার সকাল ৯ টার দিকে বাড়ির ছাদ ঢালাইকে কেন্দ্র করে
এই হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে জানা যায়। এ সময় দেশীয় অস্ত্র ও লাঠিসোটা নিয়ে তাদের উপর আক্রমন চালায় হামলাকারীরা।

মো. ফারুক হোসেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৫-১৬ সেশনের শিক্ষার্থী। তার বাড়ি নাটোরের গুরুদাসপুর । বর্তমানে তিনি অ্যানিমেল ব্রিডিং এন্ড জেনেটিক্স ডিপার্টমেন্টে মাস্টার্সের ১ম সেমিস্টারে অধ্যায়নরত। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ নাজমুল আহসান হলের আবাসিক শিক্ষার্থী।

আরো জানা যায়, বসতবাড়ির জমি নিয়ে তাদের দীর্ঘদিন ধরেই বিরোধ চলছিলো পাশের বাড়ির লোকজনদের সাথে। এর আগেও হামলার শিকার হয়েছেন বলে জানান । তবে গ্রাম্য সালিশের মাধ্যমে স্থানীয়ভাবে বিষয়গুলো মিমাংসা হয়।

আজ ১১ মে সকালে ফারুকের বাড়ির ছাদ ঢালাইয়ের কাজ শুরু হলে আপত্তি জানায় পাশের বাড়ির তাজু, মাজু, নাজিত, রবি সহ অন্যান্যরা। নির্মাণাধীন ছাদ অন্য বাসার উপরে চলে গেছে এমন অভিযোগ করে মারধর শুরু করে তারা। এ সময় দেশীয় অস্ত্র দিয়ে ফারুক ও তার পরিবারের সদস্যদের উপর হামলা করা হয়। হামলায় ফারুক সহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা আহত হন। আহতরা গুরুদাসপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ বিষয়ে আহত ফারুক হোসেন বলেন, ‘সকালে বাড়ির ছাদ ঢালাইয়ের কাজ শুরু হলে নির্মাণাধীন অংশগুলো তারা ভেঙ্গে দেয়। এ সময় আমি প্রতিবাদ করলে হাতুড়ি দিয়ে তারা আমার মাথায় আঘাত করে। আমি কিছুক্ষণের জন্য অচেতন হয়ে পড়ি। খানিক পরে জ্ঞান ফিরলে দেখি তারা আমার মা ও খালাকে নির্মমভাবে মারধর করছে। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় আমরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসি।’

এ বিষয়ে গুরুদাসপুর থানায় মামলা করা হয়েছে। সেই সাথে হামলাকারীদের সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন ফারুক ও তার পরিবার।

  •  
  •  
  •  
  •  
ad0.3