সিরাজগঞ্জে বন্যয় ৫৭টি বিদ্যালয়ে পাঠদান বন্ধ

নিউজ ডেস্কড়:

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও ভারী বর্ষণে সিরাজগঞ্জে যমুনা নদীসহ অভ্যন্তরীণ নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি থাকায় প্রতিদিনই নতুন নতুন এলাকা বন্যা কবলিত হচ্ছে। এতে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানও বন্যাকবলিত হয়ে পড়েছে।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে বন্যায় সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলায় ৮টি, কাজিপুরে ৭টি, এবং বেলকুচিতে ১০টি বিদ্যালয় বন্যাকবলিত হয়েছে।

এসব এলাকায় ইতোমধ্যেই প্রাক-প্রাথমিক, প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ক্লাস বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। আবার যে এলাকায় বিদ্যালয়ের আশপাশে উঁচু ভিটা আছে সেখানে ক্লাস নেয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

এ ব্যাপরে কাজিপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষ কর্মকর্তা মোঃ হাবিবুর রহমান জানান, তার উপজেলায় ইতিমধ্যেই ১৪টি বিদ্যালয় বন্যার পানিতে নিমজ্জিত হয়েছে।

তিনি জানান, বন্যাকবলিত যে এলাকায় উঁচু ভিটা আছে, সেখানে ক্লাস নেয়া হচ্ছে। বাকিগুলোতে ক্লাস বন্ধ রয়েছে।

তিনি আরো জানান, দুর্ঘটনার আশঙ্কায় বন্যাকবলিত এলাকার প্রাক-প্রাথমিক ও প্রথম, দ্বিতীয় শ্রেণির ক্লাস বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। শাহজাদপুর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ ফজলুল হক জানান, তার উপজেলায় কোনো বিদ্যালয় এখনো বন্যাকবলিত হয়নি। তবে ২৫টি বিদ্যালয়ের চারিদিকে পানি হয়েছে। এই বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষার্থীর উপস্থিতি কমে গেছে বলে তিনি জানান।

সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ আপেল মাহমুদ জানান ৮টি বিদ্যালয় বন্যাকবলিত হয়েছে। এর মধ্যে পার পাচিল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি অন্য বাড়িতে নেয়া হয়েছে এবং কেচুয়াহাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি অন্যত্র স্থানান্তর করা হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
ad0.3