পদ্মায় স্পিডবোট দুর্ঘটনায় আহত ৬

নিউজ ডেস্কঃ নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে গতকাল শনিবার শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলায় পদ্মা নদীতে স্পিডবোট নিয়ে মাছ ধরছিলেন কয়েকজন জেলে। এ সময় মৎস্য কার্যালয়ের অভিযানের একটি স্পিডবোট জেলেদের স্পিডবোটের ওপর আছড়ে পড়ায় ছয়জন আহত হন।

উপজেলার কাচিকাটা ইউনিয়নের পদ্মা নদীর মরিছাকান্দি পয়েন্টে গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে।আহত ব্যক্তিরা হলেন—মৎস্য সম্প্রসারণ কর্মী জাহাঙ্গীর হোসেন, ওমর আলী, সহকারী কর্মকর্তা বিশ্বজিৎ দাস, মৎস্য কার্যালয়ের কর্মী আব্দুল বারেক মিয়া, সখিপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মোস্তাফিজুর রহমান ও পুলিশ সদস্য মেহেদী হাসান।

মা ইলিশ রক্ষার জন্য নদীতে নিয়মিত টহল দিচ্ছে মৎস্য কার্যালয়, স্থানীয় প্রশাসন ও পুলিশ বাহিনী। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায়ও স্পিডবোট নিয়ে নদীতে টহল দিচ্ছিল তারা। ওই সময় অপর একটি স্পিডবোটে করে জেলেদের মাছ ধরতে দেখা যায়। সঙ্গে সঙ্গে অভিযানের স্পিডবোটটি জেলেদের স্পিডবোটটিকে ধাওয়া দেয়।

এ সময় জেলেদের স্পিডবোটটি চরে আটকে যায়। একই সঙ্গে অভিযান পরিচালনার কাজে ব্যবহৃত স্পিডবোটটির গতি বেশি হওয়ায় সেটি জেলেদের স্পিডবোটের ওপর আছড়ে পড়ে। এ সময় ছয়জন গুরুতর আহত হন এবং পুলিশের কাছে থাকা দুটি আগ্নেয়াস্ত্র নদীতে পড়ে যায়।

পরে আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে চাঁদপুর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখান থেকে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাঁকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়া নদীতে পড়ে যাওয়া দুটি আগ্নেয়াস্ত্রের মধ্যে একটি উদ্ধার করা হয়েছে।

ভেদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তানভির আল নাসিফ বলেন, ‘পুলিশ সদস্যসহ ছয়জন আহত হয়েছেন। এর মধ্যে গুরুতর আহত অবস্থায় একজনকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।’

ইউএনও আরও জানান, এরই মধ্যে গতকাল শনিবার সকালে ভেদরগঞ্জে পাঁচ জেলেকে আটক করা হয়েছে। এর মধ্যে চারজনকে জেল ও একজনকে জরিমানা করা হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
ad0.3

Tags: