জাবিতে বিশ্ব নগর পরিকল্পনা দিবস পালিত

জাবি প্রতিনিধি:

“আবাসন র্পুনগঠন: সমাজ সুদৃঢ়করণ” এ শ্লোগানকে ধারণ করে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের উদ্দ্যেগে পালন করা হয় “বিশ্ব নগর পরিকল্পনা দিবস -২০১৫”।

সোমবার ১০.৩০ এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান অনুষদের সামনে থেকে রেজিষ্টার ভবন হয়ে অডিটরিয়ামে গিয়ে শেষ হয়।

বিশ্বের উন্নত ও উন্নয়নশীল দেশ মিলিয়ে বিভিন্ন দেশে প্রতি বছর ৮ই নভেম্ববর বিশ্ব নগর পরিকল্পনা দিবস পালন করে আসছে। এরই প্রেক্ষিতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগ আগামী ৯ই নভেম্ববর পালন করতে যাচ্ছে “বিশ্ব নগর পরিকল্পনা দিবস”। এ বছরের বিশ্ব বিশ্ব নগর পরিকল্পনা দিবসের প্রতিপাদ্য বিষয় হচ্ছে “আবাসন র্পুনগঠন: সমাজ সুদৃঢ়করণ” যা বাংলাদেশের প্রেক্ষিতে অত্যন্ত তাৎপর্য্যপূর্ণ। বাংলাদেশ পৃথিবীর অন্যতম ঘনবসতিপূর্ণ একটি দেশ এবং দ্রুতকর গতিতে অপরিকল্পিতভাবে নগরায়ণ প্রক্রিয়া চলছে। ধারণা করা হচ্ছে, আগামী ২০৫০ নাগাদ বাংলাদেশের অর্ধেক জনসংখ্যা নগরে বসবাস করবে। একদিকে উচ্চ হারে অপরিকল্পিত নগরায়ণ অন্যদিকে চাহিদার বিপরীতে আবাসনের সাথে অপ্রতুলতা বাংলাদেশের নগর গুলোকে বিরাট চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি করছে। যা আবাসনের সম্পর্কিত সরকারী ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠান সমূহের আরো দায়িত্বপূর্ণ করে তুলেছে। দেশের উন্নয়নের জন্যেই পরিকল্পিত এবং সকলের বাসযোগ্য নগর এখন সময়ের দাবি।

এ উৎযাপনের উদ্দেশ্য হচ্ছে স্বল্প গৃহায়ন ব্যবস্থা দিয়ে কিভাবে সাধারণ জনগণকে আবাসন র্পুনগঠন এবং সমাজ সুদৃঢ়করণ করা যায় সে বিষয়ে সচেতন করে তোলা। এছাড়া র‌্যালিতে প্লাকাডের মাধ্যমে বিভিন্ন দাবি মধ্যে ছিল “সরকারী পর্যায়ে আবসন সুবিধা বৃদ্বি করতে হবে”, “বিসিএস ক্যাডার র্সাভিস পরিকল্পনাবিদদের জন্যে পৃথক ক্যাডার দিতে হবে”, “ইমারত নিমার্ণে ব্লিড়িং কোড অনুসরণ করতে হবে”। দিনটি উৎযাপনের জন্যে বিভিন্ন আয়োজনের মধ্যে ছিল আলোচনা সভা, পোষ্টার ও চিত্র প্রর্দশনী, পুরষ্কার বিতরণ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম। এ ছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন নগরপরিকল্পাবিদ অধ্যাপক ড. মো. আকতার মাহমুদ, সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্ল্যানাস সমাজ সমাজবিজ্ঞান অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. মো. আমির হোসেনর্ । অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ শফিক-উর রহমান, সভাপতি, নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগ।

বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্ল্যার্নাসের, সাধারণ সম্পাদক, নগরপরিকল্পাবিদ অধ্যাপক ড. মো. আকতার মাহমুদ বলেন,“ দেশের মানুষ, সরকার ও বেসরকারী বিভিন্ন পযার্য়ে নগর পবিকল্পনা বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্বি এবং জনগন সম্পক্ত করার উদ্দেশ্যে প্রতি বছর ৮ নভেম্বর পৃথিবীর বিভিন্ন নগর পবিকল্পনা দিবস পালন করা হয়।নগর পরিকল্পনার সাফল্য তুলে ধরা এবং ভবিষ্যতের চ্যালেঞ্জ সমূহকে আগে থেকে বিবেচনায় এনে পরিকল্পনা তৈরী করার আহবান জানানো হয় এই অনুষ্ঠানে”।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম বক্তৃতার শুরুতেই জাবির একটি পূণাঙ্গ ও বাস্তব সম্মত পরিকল্পনা জাবির নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিষয়ের শিক্ষার্থীদের নিকট চেয়েছেন। তিনি জাবির বিভিন্ন অপরিকল্পনা স্থাপনার বর্তমান সমস্যা তুলে ধরেন। বর্তমান স্থপতিদের গৎ বাধা পবিকল্পনা না করে বাস্তাব সম্মত পবিকল্পনা নগরবিদদের নিকট আহবান করেছেন। জাবি সংলগ্ন জামসিংহ হতে একটি রাস্তা জাবি এর ভিতর দিয়ে দেয়ার জন্যে নগরবিদদেও নিকট পবিকল্পনা চেয়েছেন।

নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভগের সভাপতি অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ শফিক-উর রহমান বলেন, “দিবস উৎযাপনের উদ্দেশ্য হচ্ছে দেশের মানুষ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সবাইকে অবহিত করা । নগর পরিকল্পনার সাফল্য তুলে ধরা এবং দেশের মানুষকে এ বিষয়ে অবহিত করা। আমি অনুষ্ঠানে উপস্থিত সবাইকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাচ্ছি”।

  •  
  •  
  •  
  •  
ad0.3

Tags: