শাওমির বিরুদ্ধে ৬৫৩ কোটি রুপি কর ফাঁকির অভিযোগ

নিউজ ডেস্ক:

২০১৭ সালের ১ এপ্রিল থেকে ৩০ জুন ২০২০ পর্যন্ত ভারতে ৬৫৩ কোটি রুাপি কর ফাঁকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে শাওমির বিরুদ্ধে। রেভিনিউ ইন্টেলিজেন্স অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে এরই মধ্যে কারণ দর্শনোর নোটিশ পাঠানো হয়েছে চীনা মোবাইল প্রস্তুতকারী কম্পানির বিরুদ্ধে।

সংবাদমাধ্যমের কাছে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, তিন বছর কোনো কাস্টমস ডিউটি দেয়নি শাওমি। এ ছাড়া কোয়ালকম ইউএসএ ও বেইজিং শাওমি কম্পানি লিমিটেডের লাইসেন্স ফি বাবদ অর্থ জমা করেনি। কিন্তু চুক্তিপত্রে এই অর্থ দেওয়ার কথা জানিয়েছিল শাওমি।

এর আগে গত ২২ ডিসেম্বর ভারতে শাওমির বিভিন্ন অফিসে তল্লাশি চালায় আয়কর বিভাগ। সেখান থেকে বেশ কিছু নথি বাজেয়াপ্ত করা হয়। দেখা গেছে, মোবাইল প্রস্তুত করার জন্য কাস্টমস ডিউটি বাবদ যে অর্থ জমা দেওয়ার চুক্তি ছিল তা দেওয়া হয়নি। এর পরই ৬৫৩ কোটি রুপি টাকা জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, কোয়ালকম ইউএস ও বেইজিং শাওমি থেকে সফটওয়্যার, প্রসেসর এবং অন্য সামগ্রী শওমি ইন্ডিয়ার কিনে নিত। এর জন্য যে অর্থ তারা দিত তা ট্রানজেকশনে দেখানো হয়নি। ফলে কাস্টমস ডিউটিতেও প্রথমে না ধরা পড়লেও পরে তা বুঝতে পেরে তদন্ত শুরু করে কেন্দ্রীয় সরকার। তার পরই পুরো বিষয়টি পরিষ্কার হয়। কোনো পণ্য আমদানি করার জন্য যে শুল্ক দেওয়ার প্রয়োজন হয় তা ১ এপ্রিল ২০১৭ থেকে ৩০ জুন ২০২০ পর্যন্ত সেই শুল্ক দেয়নি শাওমি ইন্ডিয়া।

শুধু শাওমি ইন্ডিয়া নয়, তার সহযোগী বিভিন্ন সংস্থা যারা বিভিন্ন পণ্য সরবরাহ করে সেই সব সংস্থাও কোনো শুল্ক দেয়নি বলে অভিযোগ।

সূত্র : দি ইকোনমিক টাইমস

  •  
  •  
  •  
  •  
ad0.3