দক্ষ গ্র্যাজুয়েট তৈরিতে ব্যর্থ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়?

শিক্ষা ডেস্ক:

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার মান অতীতের চেয়ে উল্লেখযোগ্য আকারে হ্রাস পেয়েছে এবং যার পেছনে বিশ্ববিদ্যালয়টির রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা-ই সবচেয়ে বড় কারণ- এমনটিই জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী,বর্তমান আ্যলামনাই এবং বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ডঃ হোসেন জিল্লুর রহমান।

তিনি আরো জানান,ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে তার বর্তমানে সরাসরি কোনো সম্পৃক্ততা না থাকলেও একজন আ্যলামনাই হিসেবে তার সময়ের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে বর্তমান সময়ের সবচেয়ে বড় পার্থক্য হচ্ছে ছাত্র রাজনীতিতে। তিনি জানান  ষাট,সত্তর এবং আশির দশকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা যেকোনো ধরনের শোষনে কিংবা অনিয়মের বিরুদ্ধে আন্দোলনের মাধ্যমে রাষ্ট্রব্যবস্থায় একটি বড় ভূমিকা রাখত কিন্তু বর্তমানে  বিশ্ববিদ্যালয়টিতে একদলীয় শাসন-ব্যবস্থা চলছে যেখানে অন্য রাজনৈতিক মতাদর্শের মানুষের নিজেদের মতামত পেশ করার কোনো সুযোগ নেই।

তিনি জানান,তিনি ছাত্র থাকাকালীন ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাদেশ ১৯৭৩’পাশ হয়েছিল যার মূল উদ্দেশ্য ছিল গণতান্ত্রিক এবং সঠিক কাঠামোর আওতায় প্রতিষ্ঠানটিকে পরিচালনা করা এবং সুষ্ঠুভাবে গণতান্ত্রিক পরিবেশের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যকার নির্বাচন, উপাচার্য নির্বাচন,অন্যান্য প্রশাসনিক পদ এবং সিন্ডিকেটগুলি নিরপেক্ষভাবে পরিচালনা করা।

কিন্তু গত চার দশকে এই অধ্যাদেশের কোনো কিছুই সঠিকভাবে পালন করা হয়নি বলে জানান তিনি। দেশের একটি স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় তার নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেনি। প্রমাণ হিসেবে তিনি বিশ্বের অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের তুলনায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার মানের দুর্বলতাকে তুলে ধরেন ।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক পাশ করা একজন শিক্ষার্থীর কর্মজীবনে প্রবেশের মানসিকতা কেমন থাকে এই প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন; ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশিরভাগ শিক্ষার্থীই এখন প্রশাসনিক চাকরির দিকে বেশি ঝুঁকছে, তারা তাদের বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের শুরু থেকেই বিসিএসের প্রস্তুতি নিচ্ছে যেটা তাদের সময়ে একদমই ছিল না। তার সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা যে বিষয়ে পড়াশোনা করতো সেদিকেই ভবিষ্যতে উন্নতির চেষ্টা চালিয়ে যেত এবং এইজন্য সফলতার পরিসংখ্যানটাও অনেক বেশি ছিল।

বর্তমানে চাকরির বাজারের সাথে তাল রাখার জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কতটুকু মানসম্মত শিক্ষার্থী তৈরি করতে পারছে এই প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, তিনি মনে করেন না ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আধুনিক শিক্ষা লাভ করছে যার কারণে চাকরির বাজারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতকদের চাহিদা ক্রমান্বয়ে হ্রাস পাচ্ছে। বেসরকারী বহুজাতক প্রতিষ্ঠান বা কোম্পানিগুলো বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে থেকে দক্ষ স্নাতক পাচ্ছেনা বলে জানান তিনি যার কারণে প্রতিবেশী দেশগুলোর স্নাতকদের চাহিদা বহির্বিশ্বে উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্রমান্বয়ে পিছিয়ে পড়ছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
ad0.3