দেশব্যাপী সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে বাকৃবি সনাতন সংঘের মানববন্ধন

রোহান ইসলাম, নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

দেশব্যাপী হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সনাতন সংঘ। বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে ছাত্রবিষয়ক উপদেষ্টা প্রফেসর ড. এ কে এম জাকির হোসেন বলেন, বাংলাদেশ যে চারটি স্তম্ভের উপর দাড়িয়ে তার একটি স্তম্ভ ধর্মনিরপেক্ষতা এবং একটি উগ্রবাদী গোষ্ঠী যারা ৭১ থেকেই চিহ্নিত তারা সেই ধর্মনিরপেক্ষতার উপর আঘাত হেনেছে। এদেরকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় আনার আহবান জানান তিনি।

বাকৃবি কেন্দ্রীয় মন্দির কমিটির সভাপতি প্রফেসর ড. গোপাল দাস এই ধরনের ন্যক্কারজনক হামলার তীব্র নিন্দা জানান এবং স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে এধরনের অবস্থা নিয়ে দুঃখ প্রকাশ করেন। সকলকে সহাবস্থানের মাধ্যমে সম্প্রীতি রক্ষার আহবান জানান।

সাম্প্রদায়িক ষড়যন্ত্রকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে বাকৃবি আন্তর্জাতিক ডেস্ক এর পরিচালক প্রফেসর ড. মাহফুজুল হক রিপন বলেন, করোনা মহামারী কাটিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছে তখন কুচক্রী মহল বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য এধরনের সাম্প্রদায়িক ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। তিনি অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

এসময় প্রফেসর ড. মোহাম্মদ সাইদুর রহমান বলেন, এই ধরনের হামলার কারণে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন ভীত সন্ত্রস্ত। তাই এই ধরনের ঘটনা যাতে আর না ঘটে সেই ব্যাপারে সজাগ থাকার আহবান জানান এবং বিচারহীনতার যে সংস্কৃতি রয়েছে তা থেকে বেরিয়ে এসে কঠোর শাস্তির দাবি জানান।

প্রফেসর ড. আবু সালেহ মাহফুজুল বারি বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারন করে এই সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে রুখে দিতে হবে

বাকৃবি ছাত্রলীগের সভাপতি সবুজ কাজী বলেন, এই ধরনের সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে রুখতে বাকৃবি ছাত্রলীগ সর্বদা তৎপর। বঙ্গবন্ধুর অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ বিনির্মানে সকলকে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করার আহবান জানান তিনি।

ফজলুল হক হল ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সজীব সাহা বলেন, এই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টকারী গোষ্ঠী সেই ৭১ থেকেই চিহ্নিত। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার সরকার কে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য এই উগ্রবাদী গোষ্ঠী এই ধরনের কর্মকান্ডে লিপ্ত হয়েছে। দোষীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানান তিনি।

বাকৃবি প্রোক্টর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ মহির উদ্দিন বলেন, সবাই পাশাপাশি যে যার ধর্ম পালন করবে। এই সম্প্রীতি বিনষ্ট কারীদের কঠোর শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানান তিনি।

বাকৃবি কেন্দ্রীয় মন্দির কমিটির মহাসচিব ড. চয়ন গোস্বামী সকলকে স্বতস্ফুর্তভাবে অংশগ্রহণ করার জন্য ধন্যবাদ জানান এবং এই ধরনের নারকীয় হামলার তীব্র নিন্দা জানান।

বাকৃবি সনাতন সংঘের সাধারণ সম্পাদক নিরঞ্জন রায়ের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সমাপনী বক্তব্য রাখেন সনাতন সংঘের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ড. লাভলু মজুমদার।

  •  
  •  
  •  
  •  
ad0.3