‘ফিড দা ফিউচার’এর “বাংলাদেশের মাছ ও মুরগির মূল্য শৃঙ্খলে খাদ্য নিরাপত্তা বৃদ্ধি করা” শীর্ষক সভা অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

‘বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল’ এর সম্মেলন কক্ষে ২৮ জুলাই, বৃহস্পতিবার দুপুর ২ টায় ইউ এস এ আই ডি এর অর্থায়নে এবং ‘ফিড দা ফিউচার ইনোভেশন ল্যাব ফর ফুড সেফটি’ কর্তৃক পরিচালিত প্রকল্প ”Enhancing Food Safety in Fish and Chicken Value Chains of Bangladesh” এর একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এর পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক ড. শামসুল আলম। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অর্থসংস্থান ও ব্যাংকিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মোঃ আকতারুজ্জামান খান। প্রকল্প প্রস্তাবনা সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য প্রদান করেন যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস স্টেট ইউনিভার্সিটির কৃষি বিজ্ঞান বিভাগের প্রধান ড. মদন মোহন দে।

প্রকল্পের বর্তমান কর্মকান্ড ও ভবিষ্যৎ কর্ম পরিকল্পনা সম্পর্কে আলোকপাত করেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. মোঃ সাইদুর রহমান এবং ‘জেন্ডার এন্ড ফুড সেফটি’ ইস্যুতে গবেষণা ফলাফল উপস্থাপন করেন প্রকল্পের বাংলাদেশ সহযোগী প্রকল্প পরিদর্শক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. সামিনা লুৎফা।

পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক ড. শামসুল আলম তার বক্তব্যে বলেন, নিরাপদ খাদ্য প্রাপ্তিতে ভোক্তাদের আগ্রহ যথেষ্ট কিন্তু বাজার ব্যবস্থাপনায় নানা অসাধুতা ও ভেজালের সংমিশ্রণের কারণে তারা তাদের সে চাহিদা দমিয়ে রেখেছে, যে কারণে নিরাপদ খাদ্যের যোগানও কম হচ্ছে, যা কর্মসংস্থান ও জিডিপিকেও নেতিবাচকভাবে প্রভাবিত করছে। এ ছাড়াও এতে খাদ্য নিরাপত্তা ও পুষ্টি ঝুঁকি তো রয়েছেই। এরই প্রেক্ষিতে গবেষকদের এ ধরনের প্রকল্প আরও বেশি করে পরিচালনা করার জন্য উৎসাহিত করেন। তিনি আরও বলেন, গবেষকদের উচিত ভোক্তা পর্যায়ে কোন খাদ্যের খাদ্যমান কেমন তার গবেষণালব্ধ ফলাফল প্রকাশ করা, নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতকরণে কি কি স্ট্যান্ডার্ড অনুসরণ করা উচিত সে সম্পর্কে নির্দিষ্টি সুপারিশসহ সরকারের সংশ্লিষ্ট মহলে উপস্থাপন করা এবং সরকারের কাজ হল তা বাস্তবায়নে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করা।

এছাড়াও সভায় মন্তব্য ও পরামর্শ প্রদান করেন মৎস্য অধিদপ্তরের পরিচালক খ. মাহবুবুল হক, বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের পরিচালক (প্রশাসন ও অর্থ) ড. মোঃ আনিছুর রহমান, বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ এর সদস্য (জনস্বাস্থ্য ও পুষ্টি) জনাব মঞ্জুর মোর্শেদ আহমেদ, ও আরো অনেকে। উপস্থিত ছিলেন ২০২০ সালে গবেষণায় একুশে পদক প্রাপ্ত কৃষি অর্থনীতিবিদ ড. জাহাঙ্গীর আলম খান, পল্লী উন্নয়ন একাডেমি (RDA) এর মহাপরিচালক জনাব খলিল আহমদ, বিভিন্ন শিক্ষা ও গবেষনা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও গবেষকবৃন্দ।

ইউ এস এ এই ডি এর অর্থায়নে পরিচালিত এই প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য নিরাপদ খাদ্য, বিশেষ করে নিরাপদ মাছ ও মুরগি উৎপাদন, বাজারজাতকরণ ও ভোগের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গের জ্ঞানের পরিধি, তাদের মনোভাব ও বাস্তব জীবনে তা অনুশীলন করার মাত্রা কেমন তা জানা এবং সে অনুযায়ী বিভিন্ন প্রশিক্ষণ ও কর্মশালার রুপরেখা প্রস্ততকরণ এবং তা বাস্তবায়নের জন্য সরকারের সংশ্লিষ্ট সকলকে কার্যকরী নীতিমালা প্রণয়নে উৎসাহিত করা। এছাড়াও প্রকল্পের নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় উৎপাদিত অধিকতর নিরাপদ মৎস খাদ্য প্রয়োগের মাধ্যমে পাঙ্গাস, তেলাপিয়া ও রুই মাছ উৎপাদন করা এবং স্বাস্থ্যঝুঁকি বিবেচনায় প্রচলিত খাদ্য ব্যবস্থাপনায় চাষকৃত অপেক্ষাকৃত কম নিরাপদ মাছসমূহ থেকে অধিকতর নিরাপদ মাছ প্রাপ্তিতে ভোক্তাদের চাহিদা কেমন তা অকশন বা নিলাম প্রক্রিয়ার মাধ্যমে নিরুপন করা।

প্রকল্পের বিভিন্ন কর্মকান্ড যা ইতিমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে এবং ভবিষ্যত কর্ম পরিকল্পনা সম্পর্কে সংশ্লিষ্ট সকল ‘সহযোগী ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান বা নীতিনির্ধারক পর্যায়ের সকলকে অবহিতকরণই এই সভার মূল উদ্দেশ্য।

  •  
  •  
  •  
  •  
ad0.3