গ্লাসগোর উদ্দেশে সকালে ঢাকা ছাড়লেন প্রধানমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক :

আজ রবিবার (৩১ অক্টোবর) সকাল ৯টা ২০ মিনিটে,বাংলাদেশসহ জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোর দাবি তুলে ধরতে যুক্তরাজ্যের গ্লাসগোর উদ্দেশে ঢাকা ছেড়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিজি-২১০২ ভিভিআইপি ফ্লাইটে গ্লাসগোর উদ্দেশে ঢাকা ছাড়েন তিনি। স্থানীয় সময় দুপুর ২টা ৪৫ মিনিটে গ্লাসগোর প্রেস্টউইক বিমানবন্দরে পৌঁছানোর কথা রয়েছে ফ্লাইটটির।

আজ থেকে আগামী ১২ নভেম্বর পর্যন্ত জাতিসংঘের ফ্রেমওয়ার্ক কনভেনশন অন ক্লাইমেট চেঞ্জের (ইউএনএফসিসিসি) কনফারেন্স অব পার্টিজের (কপ) ২৬তম বার্ষিক অধিবেশন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

জলবায়ু পরিবর্তনজনিত কারণে ঝুঁকির মুখে থাকা ৪৮টি দেশের সংগঠন ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামের (সিভিএফ) বর্তমান সভাপতি হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদল কপ-২৬ শীর্ষ সম্মেলনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। আগামীকাল সোমবার প্রধানমন্ত্রী কপ-২৬-এর শীর্ষ সম্মেলনে ভাষণ দেবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

সূত্র মতে,সম্মেলনে বাংলাদেশের প্রধান দাবি থাকবে তিনটি। প্রথমটি হলো বৈশ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধি দেড় ডিগ্রি সেলসিয়াসে সীমিত রাখার লক্ষ্যে কার্বন নিঃসরণ কমানোর কার্যকর লক্ষ্য নির্ধারণ করা। দ্বিতীয় দাবি হলো প্যারিস জলবায়ু চুক্তি অনুযায়ী জলবায়ু তহবিলে উন্নত দেশগুলোর বার্ষিক ১০০ বিলিয়ন ডলার দেওয়ার অঙ্গীকার পূরণ এবং সেই তহবিল থেকে অভিযোজন ও প্রশমন খাতে ৫০ঃ৫০ অনুপাতে টাকা বিতরণ নিশ্চিত করা। তৃতীয়টি হলো দূষণ কমাতে এবং জলবায়ু পরিবর্তনে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোকে সহায়তা করা।

সফরসূচি অনুযায়ী, প্রধানমন্ত্রী আগামীকাল সকালে সিভিএফ-কমনওয়েলথের যৌথ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ নেবেন। এ ছাড়া তিনি যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের আমন্ত্রণে অ্যাকশন অ্যান্ড সলিডারিটি- দ্য ক্রিটিক্যাল ডিকেড শীর্ষক সভায় যোগ দেবেন। পরদিন মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী অংশ নেবেন নারী ও জলবায়ু শীর্ষক সভায়।

গতকাল শনিবার ঢাকায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন জানিয়েছিলেন, সিভিএফের সভাপতি হিসেবে বাংলাদেশ কপ-২৬ সম্মেলনে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর অধিকার আদায়ে বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখছে। এ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে সিভিএফ ও কপ-২৬ লিডার্স ডায়ালগ অনুষ্ঠিত হবে। শীর্ষ সম্মেলনে সিভিএফের সদস্য ও পর্যবেক্ষক দেশের রাষ্ট্র বা সরকার প্রধান, কপ-২৬ আয়োজনকারী দেশ যুক্তরাজ্যের শীর্ষ নেতা ও অন্যান্য বিশিষ্ট ব্যক্তি যোগ দেবেন। সম্মেলনে জলবায়ু পরিবর্তন রোধ, জলবায়ু অভিযোজন ও অর্থায়নের লক্ষ্যে আহবান জানিয়ে ঢাকা-গ্লাসগো ঘোষণা গৃহীত হবেও বলে বাংলাদেশ আশা করছে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্কটিশ পার্লামেন্টে স্কটিশ সংসদ সদস্যদের উদ্দেশে জলবায়ু সমৃদ্ধির জন্য আহবান শীর্ষক বক্তব্য দেবেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরো জানান, প্রধানমন্ত্রী গ্লাসগোতে অবস্থানকালে ‘প্রিন্স অব ওয়েলস’ যুবরাজ চার্লস, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ও শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রপতি গোতাবায়া রাজাপক্ষেসহ আরো কয়েকজন নেতা ও বিশিষ্ট ব্যক্তির সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন।

উল্লেখ্য যে,প্রধানন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ৩ থেকে ৮ নভেম্বর যুক্তরাজ্যের রাজধানী লন্ডন সফর করবেন। এ সময় তিনি লন্ডনে ওয়েস্টমিনস্টার প্যালেসে যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্ট সদস্যদের উদ্দেশে বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে বক্তব্য দেবেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
ad0.3