কোচিং না করার অপরাধে পরীক্ষায় অকৃতকার্য হলিক্রসের ছাত্রী

নিউজ ডেস্কঃ কোচিং না করার অপরাধে পরীক্ষায় অকৃতকার্য। অপমানিত হয়ে আত্মহত্যা করে হলিক্রস স্কুল অ্যান্ড কলেজের ছাত্রী। সারা দেশে শিক্ষকদের মানসিক ও শারীরিক নির্যাতনের ঘটনায় উদ্বিগ্ন অভিভাবকরা। এ সংকটের স্থায়ী সমাধান চান শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি।

তিনি জানান, প্রস্তাবিত আইনে শিক্ষকদের নিজ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের কোচিং করানো নিষিদ্ধ করা হবে।

মঙ্গলবার (২৩ আগস্ট) রাজধানীর হলিক্রস স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী পারপিতা ফাইহা আত্মহত্যা করেন।
সহপাঠী ও স্বজনদের অভিযোগ, স্কুলের উচ্চতর গণিতের শিক্ষক শোভন রোজারিওর কাছে প্রাইভেট না পড়ায় ফাইহাকে ফেল করিয়ে দেয়া হয়। অপমান সইতে না পেরেই আত্মহননের পথ বেছে নেন ফাইহা।

এর আগে গত এপ্রিলে সিরাজগঞ্জের তাড়াশ সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাইভেট না পড়ায় পিটিয়ে মাহিয়া রহমান নামে এক শিক্ষার্থীর হাত ভেঙে দেয়া হয়। সেখানে অভিযুক্ত খোদ প্রধান শিক্ষক আলী হাসান।
গত সোমবার ভাইরাল হয় বরগুনায় স্কুলছাত্রকে কোচিং সেন্টারে শিক্ষকের পেটানোর নির্মম দৃশ্য।

অভিভাবকরা বলছেন, সংশ্লিষ্ট শিক্ষকের কাছে প্রাইভেট না পড়লে নম্বর কম দেয়ার পাশাপাশি শ্রেণিকক্ষে মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন করা হয়। বাধ্য হয়েই শ্রেণিশিক্ষকের কাছে প্রাইভেট বা কোচিং করাচ্ছেন তারা।

একে ভয়াবহ অপরাধ উল্লেখ করে প্রস্তাবিত শিক্ষা আইনে এসব ঘটনার পুনরাবৃত্তি রোধে ব্যবস্থা থাকবে বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
ad0.3