পায়ের সামনে থুতু ফেলায় কিশোরকে হত্যা

নিউজ ডেস্কঃ

নরসিংদীর মাধবদীতে পায়ের সামনে থুতু ফেলাকে কেন্দ্র করে এক কিশোরকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। হত্যার ঘটনায় জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।  রোববার দিবাগত রাতে তাদের গ্রেফতার করা হয়। সোমবার (১৪ নভেম্বর) দুপুরে এক সংবাদসম্মেলনে তথ্য জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আল আমিন।

সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আল আমিন জানান, গত ১০ নভেম্বর বিকেলে নারায়ণগঞ্জ জেলারআড়াইহাজারের মোবারক হোসেন শাহীন নামে এক কিশোর নরসিংদীর মাধবদী এলাকায় অবস্থিত তার কর্মস্থল থেকে বাড়িথেকে ফেরার পথে রাস্তার পাশে থুতু ফেলে। সেই থুতু ইয়াসিন মিয়া নামে স্থানীয় এক যুবকের পায়ের সামনে পড়লে তা নিয়ে তর্কবাধে। এরই ধারাবাহিকতায় ১২ নভেম্বর সন্ধ্যায় নরসিংদীর মাধবদীর বিরামপুর এলাকায় আবারও তর্ক ঝগড়া হয়। সময়ইয়াসিন তার সহযোগী মোবারক হোসেন শাহীন নামে ওই যুবককে লোহার রড, চাপাতি, চাইনিজ কুড়াল ছুরি দিয়ে আঘাতকরে। পরে রক্তাক্ত অবস্থায় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে নরসিংদী সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। অবস্থার অবনতি হলেভুক্তভোগীর পরিবারের লোকজন তাকে সদর হাসপাতাল থেকে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাতসাড়ে ১১টার দিকে মারা যায় শাহীন।

ঘটনায় নিহতের মা মাজেদা বেগম বাদী হয়ে ১০ জনের নাম উল্লেখ করে মাধবদী থানায় মামলা করলে রোববার দিবাগত রাতেপুলিশ নরসিংদীর মাধবদী এবং নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে আরাফাত, অলিউল্লাহ, রাহাত এবংমো. অলি নামে চারজনকে গ্রেফতার করে।

  •  
  •  
  •  
  •  
ad0.3