দুইটি ভ্যাক্সিনের মিশ্রণে তৈরি নতুন ‘মিক্স এন্ড ম্যাচ’ ভ্যাক্সিন অধিক কার্যকর?

বিজ্ঞান ডেস্ক:

বর্তমানে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ যেন কোনোভাবেই কমানো যাচ্ছে না। প্রতিনিয়ত রুপ পাল্টাচ্ছে
প্রাণঘাতি এই ভাইরাসটি। করোনা প্রতিষেধক অনেক ধরনের ভ্যাক্সিন ইতোমধ্যেই বাজারজাত করা হলেও তাদের কার্যকারিতা নিয়ে এখনো ধোঁয়াশার ভেতর গোটা বিজ্ঞানমহল। প্রতিনিয়ত-ই তারা নানারকম পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালিয়ে যাচ্ছেন।

তবে সম্প্রতি একটি নতুন ধরনের রিসার্চে সাড়া পড়ে গেছে পুরো বিজ্ঞানমহলে। একটি গবেষনায় উঠে এসেছে যে,দুইটি কোভিড ভ্যাক্সিনের মিশ্রনে তৈরি নতুন মিক্সড ভ্যাক্সিন করোনা প্রতিরোধে আরো বেশি কার্যকর। গবেষনাটিতে আরো বলা হয়েছে, আ্যস্ট্রোজেনকা এবং ফাইজারের মিশ্রনে তৈরি নতুন ভ্যাক্সিনের একটি ডোজ-ই অন্য যেকোনো ভ্যাক্সিনের দুইটি ডোজের চেয়ে বেশি কার্যকর ও শক্তিশালী।

ইউকে’র একদল গবেষকও বর্তমানে মিক্সড ভ্যাক্সিনকে বেশি এগিয়ে রেখেছেন। তারা বলছেন,মিক্সড ভ্যাক্সিন করোনা প্রতিরোধে অধিক শক্তিশালী এবং এতে মৃত্যুহারের ঝুঁকিও অনেক কমে যায়। জার্মান ইমিউনোলজিস্ট এরিক স্যান্ডার বলেন, মিক্সড ভ্যাক্সিনের কার্যকারিতা নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যেও কিছুটা স্বস্তির আশ্বাস লক্ষ করা যাচ্ছে।

যদিও বর্তমানে ১৬ ধরনের ভ্যাক্সিন থেকে মিক্সড ভ্যাক্সিন তৈরির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে এবং ইতোমধ্যেই ছোট পরিসরে অনেকগুলো দেশে হিউম্যান ট্রায়ালও শুরু হয়েছে। তবে বিজ্ঞানিরা জানাচ্ছেন ,পরিপূর্ণ ফলাফল পেতে আরো অনেক গবেষনার প্রয়োজন রয়েছে।

ফিওনা রাসেল নামের একজন ভ্যাক্সিন গবেষক জানিয়েছেন,মিক্সড ভ্যাক্সিনের একটি ডোজই যথেষ্ঠ করোনা প্রতিরোধের জন্য,এতে করে ভ্যাক্সিন উৎপাদনের উপরেও কিছুটা চাপ কমবে এবং সর্বোচ্চ সংখ্যক মানুষকে ভ্যাকনিশেসনের আওতায় আনাও নিশ্চিত করা যাবে।

তবে নিরাপত্তা ঝুঁকি এবং পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নিয়ে এখনো নিশ্চিত নন গবেষকরা। মিক্সড ভ্যাক্সিনের ট্রায়ালেও সাধারণ ভ্যাক্সিনের মতোই পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া লক্ষণীয়। তবে এটি খুব বেশি ঝুঁকিপূর্ণ নয় হিসেবেই জানিয়েছেন তারা।

  •  
  •  
  •  
  •  
ad0.3