‘আফ্রিকান সিলাকা’- যে মাছ বেঁচে থাকে শত বছর !

বিজ্ঞান ডেস্ক:

শতবর্ষী মাছ! শুনতে অবাক লাগছে নিশ্চয়ই? শুনতে অবাক লাগলেও কথাটা কিন্তু একদম সত্যি। ‘আফ্রিকান সিলাকা’ এমনই এক মাছের প্রজাতি যারা শতবর্ষ বা তারও বেশি সময় ধরে বেঁচে থাকে!

খুবই বিরল প্রজাতির এই মাছগুলোর সর্বপ্রথম সন্ধান পাওয়া যায় ১৯৩৮ সালে। যদিও প্রায় ৪০ কোটি বছর ধরে কোনো রকমের বিবর্তন ছাড়াই এই প্রজাতির মাছগুলো পৃথিবীর বুকে টিকে আছে।

এই প্রজাতির মাছগুলো লম্বায়প্রায় ২ মিটার পর্যন্ত  বাড়তে পারে এবং স্তন্যপায়ীদের মতো গর্ভধারণ প্রক্রিয়ায় পোনা উৎপাদন ঘটিয়ে থাকে।

সম্প্রতি গবেষকরা পোলারাইজড লাইট মাইক্রোসকপি’র মাধ্যমে মাছের আইঁশের উপর গবেষনা চালালে তাতে চাঞ্চল্যকর তথ্য দেখতে পান। একজন ফরাসি গবেষক জানিয়েছেন, সিলাকার জীবন চক্র যেকোনো সামুদ্রিক মাছের চেয়ে অনেক ধীরগতির এবং তা প্রায় প্রাগৈতহাসিক সময়ের গভীর সমুদ্রের হাঙ্গরসহ অন্যান্য প্রানীদের জীবনচক্রের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ।

‘আফ্রিকান সিলাকা’ মাছগুলো শতবছর বাঁচতে পারলেও বর্তমানে তা চরম বিপদাপন্ন প্রজাতি হিসেবে (আই.ইউ.সি.এন) এর তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছে।

গবেষকরা সাধারণত আলোক অনুবীক্ষণ যন্ত্রের সাহায্যে প্রানীদের শরীরে বিভিন্ন প্যাটার্ণের মাধ্যমে প্রানীদের বয়স নির্ধারণ করে থাকেন। কিন্তু আফ্রিকান সিলাকা মাছের ক্ষেত্রে আলোক অনুবীক্ষণ যন্ত্রের সাহায্যে সঠিক বয়স নির্ণয় করা সম্ভবপর হয় নি। কিন্তু পোলারাইজড আলোক অনুবীক্ষণের সাহায্যে এই অসম্ভবকে সম্ভব করা গেছে। একদল গবেষক সিলাকা মাছের ভ্রুণের উপর গবেষনা করে দেখতে পান এই মাছের ভ্রুণ অবস্থাতে প্রায় ৫ বছর থাকে। এত বড় গর্ভকাল অন্য যেকোনো মাছের ক্ষেত্রে খুবই বিরল।

তবে গবেষকরা আশা করছেন তাদের এই গবেষনার মধ্য দিয়ে এই প্রজাতির মাছদের সংরক্ষনের উপায় উদ্ভাবন করা সম্ভবপর হয়ে উঠবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
ad0.3