আবারো কি শাস্তি হচ্ছে সাকিবের? হলেও মাত্রাটা কেমন?

sakib

স্পোর্টস ডেস্কঃ ঢাকা আবাহনী লিমিটেড এবং মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের মধ্যকার হাইভোল্টেজ ম্যাচে ঘটে গেল অপ্রীতিকর এক ঘটনা। আম্পায়ারের সিদ্ধান্তে মেজাজ হারিয়ে লাথি মেরে স্ট্যাম্প ভেঙে বসলেন সাকিব আল হাসান।

ঘটনাটা ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসের। লক্ষ্য তাড়ায় নেমে ২৫ রানের মধ্যেই ৩ উইকেট হারিয়ে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে যায় আবাহনী। এরপর নিজের প্রথম ওভারের শেষ বলে আবাহনীর অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমের বিপক্ষে লেগ বিফোরের আবেদন করেন সাকিব।

কিন্তু আম্পায়ার সাকিবের আবেদনে সাড়া না দিলে লাথি মেরে স্ট্যাম্প মোহামেডানের অধিনায়ক। এরপর ওভার শেষে তিন স্ট্যাম্প উঠিয়ে আম্পায়ারের দিকে তেড়ে যান সাকিব। এর কিছুক্ষণ পর বৃষ্টি বাধায় খেলা স্থগিত হয়ে যায়।

মাঠ ছাড়ার সময় ফের ঝামেলায় জড়ান সাকিব। এবার বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালক, জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক ও আবাহনী লিমিটেডের প্রধান কোচ খালেদ মাহমুদ সুজনের সঙ্গেও বাকবিতণ্ডা হয় সাকিবের।

পরে অবশ্য এ ঘটনায় সমর্থকদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করেছেন সাকিব আল হাসান।

শুক্রবার ম্যাচ শেষে এক ফেসবুক পোস্টে সাকিব লেখেন, ‘মেজাজ হারিয়ে সবার জন্য, বিশেষ করে যারা বাসায় বসে খেলা দেখছিলেন তাদের জন্য ম্যাচটার বারোটা বাজানোয় আমি ভক্ত এবং সমর্থকদের কাছে আন্তরিকভাবে দুঃখিত।

আমার মতো একজন অভিজ্ঞ খেলোয়াড়ের এভাবে প্রতিক্রিয়া দেখানো মোটেই উচিত নয়, কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে অনেক সময় না চাইলেও এমনটা হয়ে যায়। আমি সব দল, ম্যানেজমেন্ট, টুর্নামেন্টের কর্মকর্তা এবং আয়োজক কমিটির কাছে এই ভুলের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করছি। আমি আশা করি, ভবিষ্যতে আর এমন কিছুর পুনরাবৃত্তি হবে না। ধন্যবাদ এবং সবার জন্য ভালোবাসা। ’

সাকিব আল হাসানের স্টাম্পে লাথি দেওয়া ও স্টাম্প আছাড় দেওয়ার ঘটনায় শাস্তির মাত্রাটা কেমন, এই আলোচনাই ক্রিকেট পাড়ায়। আইন অনুযায়ী, মাঠের আচরণে লেভেল থ্রী ভঙ্গ করেছেন সাকিব। সে ক্ষেত্রে তিন থেকে পাচ ম্যাচ নিষিদ্ধ হতে পারেন, সাথে আর্থিক জরিমানাও গুনতে হবে সাকিবকে। বেশি হলে টুর্নামেন্টের বাকি অংশই আর খেলতে পারবেন না টাইগার অলরাউন্ডার।

ব্যাটসম্যান এলবিডব্লিউ ছিলেন কি ছিলেন না, আম্পায়ার পক্ষপাতিত্ব করেছেন কিনা, সেটা ভিন্ন প্রসঙ্গ। এ নিয়ে পক্ষে-বিপক্ষে তর্ক বিতর্ক হতেই পারে। তবে সাকিব যা করেছেন, তা যে ঘোরতর অন্যায়, এ নিয়ে কোনো তর্ক থাকতেই পারে না। পুরো ঘটনা মাঠে বসেই দেখেছেন বিসিবির কর্তারা। ম্যাচ শেষ হতেই এই ঘটনার ব্যাপারে সিসিডিএম চেয়ারম্যানের কাছে জানতে চাওয়া। অপ্রত্যাশিত হলেও শাস্তির মুখে পড়ছেন সেটাও নিশ্চিত।

বিসিবি’র সিসিডিএম চেয়ারম্যান কাজী ইনাম আহমেদ জানান, এটা আসলেই অপ্রত্যাশিত। খেলার মধ্যে এক্সসাইটমেন্ট এসে যেতে পারে। এ ঘটনায় ম্যাচের আম্পায়ার ও ম্যাচ রেফারি একটা রিপোর্ট দেবে। তারপর যদি কোন আইন ভঙ্গ হয় তাহলে আইন অনুসারেই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এর আগেও বেশ কয়েকবার অসোভন আচরণের কারণে শাস্তি পেয়েছেন সাকিব।

  •  
  •  
  •  
  •  
ad0.3

Tags: