হেমোফোবিয়া বা রক্তের ভয় কি

তাসনিম ইলিন ইসলাম:

পৃথিবীতে বহুধরনের ফোবিয়া রয়েছে। তারমধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো হেমোফোবিয়া। এই ফোবিয়ার কথা আমাদের অনেকেরই অজানা। এটি পৃথিবীতে শতকরা ২ থেকে ৩ শতাংশ মানুষের হয়ে থাকে। এটি সাধারণ একটি শারীরিক সমস্যাই বলা চলে। এই ফোবিয়ায় আক্রান্ত ব্যক্তি সামান্য রক্ত দেখলেই ভয় পান, তার মাথা ঘোরে, এমনকি অজ্ঞানও হয়ে যান। অনেকেরই বমিও আসে।

হেমোফোবিয়ায় আক্রান্ত ব্যক্তি যখন রক্ত দেখেন তখন তার হার্টের হার এবং রক্তচাপ মারাত্মকভাবে কমতে থাকে। রক্তচাপের প্রভাব মস্তিষ্কে রক্ত প্রবাহ কমিয়ে দেয়। ফলে ব্যক্তি অজ্ঞান হয়ে যেতে পারেন।

হিমোফোবিয়ার অন্যান্য লক্ষণগুলোর মধ্যে রয়েছে শ্বাস কষ্ট, বুকে ব্যথা, হালকা মাথা ব্যথা, ঠাণ্ডা লাগা এবং হৃদস্পন্দন বেড়ে যাওয়া স্বাভাবিক। হেমোফোবিয়া অনেকে উত্তরাধীকারসূত্রে পেয়ে থাকেন। আবার তার নিজের থেকেও হতে পারে।

এই ফোবিয়ায় আক্রান্ত অনেকেই ইঞ্জেকশনের সিরিঞ্জ দেখলে ভয় পান। রক্তদান করতেও এই ভীতি কাজ করে। চিকিৎসার ভাষায় একে ভ্যাসোভেগাল সিনড্রোম অথবা নিউরোলজিকাল সিনড্রোম ও বলা হয়।

এমন হলে কি করা উচিত?
চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। কিন্তু হঠাৎ কাউকে এমন হতে দেখলে বা নিজের এমন হলে দ্রুত কোনও শক্ত জিনিসে হেলান দিয়ে বসে পড়ুন। ঘাড়ে পানি দিন। ধীরে ধীরে শুয়ে পড়ে পা দুটোকে কোনও সাপোর্টের মাধ্যমে উঁচু করে রাখুন। এতে রক্ত চলাচল দ্রুত স্বাভাবিক হবে ও প্যানিক অ্যাটাক সারবে।

রক্তে ভয় থাকলে মেডিক্যাল চেক আপ বা কোনও ইঞ্জেকশন নেওয়ার সময় একা যাওয়া যাবে না। সূচের দিকে না তাকানোই ভাল। প্রয়োজনে পরীক্ষক বা চিকিৎসককে নিজের এই ফোবিয়ার কথা জানিয়ে রাখুন।

  •  
  •  
  •  
  •  
ad0.3