অবশেষে তামিমের দুর্দান্ত সেঞ্চুরি

নিউজ ডেস্ক:
টেস্ট ক্রিকেটে নিজের দশম শতরানটি পেলেন তামিম ইকবাল। চট্টগ্রামে জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে আজ (১৭ মে) শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্টের দ্বিতীয় দিন তামিমের ব্যাট থেকে এসেছে দারুণ এক শতরান। মধ্যাহ্ন বিরতির আগে তামিম ৮৯ রানে অপরাজিত ছিলেন। বিরতি থেকে ফিরে তাঁর তিন অঙ্কের ঘরে পৌঁছতে বেশি সময় লাগেনি।

অবশ্য মধ্যাহ্ন বিরতি থেকে ফেরার পরই ওপেনিং সঙ্গী মাহমুদুল হাসানকে হারাতে হয়েছে তাকে। ৫৮ রান করা মাহমুদুল আসিথা ফার্নান্ডোর বলে গ্লাভসবন্দি হয়েছেন। তার ফেরার পর কাঙ্ক্ষিত সেঞ্চুরিটি তুলে নেন তামিম। ৫১ ওভার শেষে প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১ উইকেটে ১৬৯ রান। তামিম ব্যাট করছেন ১০০ রানে, নাজমুল হোসেন শান্ত ১ রানে। স্বাগতিকরা পিছিয়ে আছে ২২৮ রানে।

বামহাতি ওপেনারের সর্বশেষ সেঞ্চুরিটি ছিল ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারি। হ্যামিল্টনে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ১২৬ রান করেছিলেন। তার পর দুবার কাছে গেলেও সেসব ইনিংস সেঞ্চুরিতে রূপ দিতে পারেননি। ২০২১ সালে পাল্লেকেলেতে এই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৯০ ও ৯২ রানের ইনিংস খেলেছেন। একটিতে অপরাজিত থেকেছেন ৭৪ রানে।

ঘরের মাঠে সর্বশেষ সেঞ্চুরিটি ছিল ২০১৬ সালের অক্টোবরে। মিরপুরে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১০৪ রান করেন তিনি।

অবশ্য টেস্টে বরাবর বাংলাদেশের আক্ষেপের নাম হয়ে থেকেছে এই ওপেনিং। থিতু হওয়ার পাশাপাশি বড় রান খুব একটা আসতে দেখা যায় না। সেখানে সুবাস ছড়িয়েছেন তামিম ইকবাল-মাহমুদুল হাসান। তাদের ছড়ি ঘোরানো ব্যাটিংয়েই ওপেনিংয়ে ৬১ ইনিংস পর দেখা মিলেছে শতরানের পার্টনারশিপ।

লঙ্কান বোলারদের দিনের শুরু থেকেই শাসন করেছেন দুই ওপেনার। তামিম দ্রুত ব্যাট চালিয়ে ফিফটি তুলে নিয়েছেন। দশম সেঞ্চুরি পেতে খেলেছেন ১৬২ বল। মাহমুদুল হাসানের তুলনায় আক্রমণাত্মক ব্যাটিংই করেছেন তিনি।

এর আগে অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসের ১৯৯ রানের দুর্দান্ত ইনিংসে ভর করে শ্রীলঙ্কার প্রথম ইনিংস থামে ৩৯৭ রানে। একাই ৬ উইকেট নেন বাংলাদেশের স্পিনার নাঈম হাসান। জবাবে দ্বিতীয় দিনের শেষ বিকেলে নেমে কোনো উইকেট না হারিয়ে ৭৬ রান করে বাংলাদেশ। জয় ৩১ ও তামিম ৩৯ রান নিয়ে অপরাজিত থাকেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
ad0.3